#morningtribune#bd

১১-১২ অক্টোবর জাবিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটার সাক্ষাৎকার

জাবি প্রতিনিধি:

আগামী ১১ ও ১২ অক্টোবর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ভর্তির জন্য আবেদনকারী শিক্ষার্থীদের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো উপাচার্যের অফিস কক্ষে এ সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে।

সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার ও কেন্দ্রীয় ভর্তি পরিচালনা কমিটির সচিব মো. আবু হাসান সাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘১১ অক্টোবর সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বেলা ১১ টা পর্যন্ত মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে। একই দিন বেলা ১১ টা থেকে বিকেল ৩ টা পর্যন্ত মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনির (দাদা/দাদী) সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে। অপরদিকে ১২ অক্টোবর সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনির (নানা/নানী) সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে।

সেখানে আরো বলা হয়, ‘সাক্ষাৎকারের সময় অবশ্যই মুক্তিযোদ্ধা সংক্রান্ত মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট www.molwa.gov.bd এ সংরক্ষিত যে কোন একটি প্রমাণক এবং মুক্তিযোদ্ধা সংক্রান্ত সরকারী ভাতা প্রাপ্তির প্রমাণপত্র সঙ্গে আনতে হবে। মুক্তিযোদ্ধার নাতি – নাতনির ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধার সাথে সম্পর্ক প্রমাণের জন্য শিক্ষার্থীর পিতা / মাতার জাতীয় পরিচয়পত্র ( জাতীয় পরিচয়পত্রে মুক্তিযোদ্ধার নাম থাকতে হবে ) না থাকলে এস.এস.সি’র সনদ , এস.এস.সি’র সনদ না থাকলে জন্ম নিবন্ধন সনদ ( অনলাইন কপি ) , জন্ম নিবন্ধন সনদ না থাকলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা / নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট – এর অফিসিয়াল প্যাডে সিল ও স্বাক্ষরযুক্ত সংগৃহীত সম্পর্কের প্রমাণপত্রের মূল কপি ও আবেদনপত্রের এক সেট ফটোকপিও সাক্ষাৎকারের সময় অবশ্যই সঙ্গে আনতে হবে। মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ভর্তির যে কোন পর্যায়ে মুক্তিযোদ্ধার সনদপত্র ও নাতি-নাতনির ক্ষেত্রে সম্পর্কের প্রমাণপত্রসহ প্রদত্ত অন্যান্য তথ্য অসত্য প্রমাণিত হলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিলসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সাক্ষাৎকারে অনুপস্থিত আবেদনকারী শিক্ষার্থীদের ভর্তির কোন সুযোগ থাকবে না।

 

আবেদনপত্রের এক সেট ফটোকপিও সাক্ষাৎকারের সময় অবশ্যই সঙ্গে আনতে হবে। মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ভর্তির যে কোন পর্যায়ে মুক্তিযোদ্ধার সনদপত্র ও নাতি-নাতনির ক্ষেত্রে সম্পর্কের প্রমাণপত্রসহ প্রদত্ত অন্যান্য তথ্য অসত্য প্রমাণিত হলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিলসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সাক্ষাৎকারে অনুপস্থিত আবেদনকারী শিক্ষার্থীদের ভর্তির কোন সুযোগ থাকবে না।

ভর্তির জন্য নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের তালিকা পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি সম্পর্কিত ওয়েবসাইটে (academic.juniv.edu) প্রচার করা হবে এবং এসএমএস – এর মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published.