বাবার মরদেহ #News#Bd#Morningtribune#latest

বাবার মরদেহ বাড়িতে রেখে পরীক্ষা কেন্দ্রে মেয়ে

চাঁদপুর প্রতিনি

চাঁদপুরে বাবার মরদেহ বাড়িতে রেখে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে ফেরদৌসী আক্তার জুঁহি নামে এক পরীক্ষার্থী। তিনি চাঁদপুর সদর উপজেলার শাহ মাহমুদপুর ইউনিয়নের শাহতলী জোবাইদা বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের পরীক্ষার্থী।

বুধবার আশিকাটি ইউনিয়নের এম এম নূরুল হক উচ্চবিদ্যালয় পরীক্ষাকেন্দ্রে ইংরেজি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন জুঁহি। এর আগে ভোর ৬টায় নিজবাড়িতে তার বাবা মারা যান

এর আগে, বুধবার ভোর ৬ টার দিকে নিজ বাড়ীতে ইন্তেকাল করেন ফেরদৌসী আক্তার জুঁহির বাবা। জুঁহি এ বছর শাহতলী জোবাইদা বালিকা উচ্চবিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। সে একই ইউনিয়নের ভাটেরগাঁও এলাকার বেপারী বাড়ির (ইচলী বাড়ি) মৃত মকবুল হোসেন বেপারীর ছোট মেয়ে। দুই বোনের মধ্যে ফেরদৌসী আক্তার ছোট।

 

 

স্থানীয়রা জানায়, মৃত মকবুল হোসেন বেপারী দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ছিলেন। এর আগে তিনি ব্রেনস্ট্রোক করেছিলেন এবং একবার গাছ থেকে পড়ে গুরুতর আহত হয়েছিলেন। সবশেষ দু’দিন আগে তিনি জ্বর ও পেটব্যথা নিয়ে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফেরেন। বুধবার সকালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

মকবুল হোসেনের ফুফাতো ভাই আবদুল বারেক খান বাবুল বলেন, মকবুল সকালে মারা যায়। তার ছোট মেয়ে ফেরদৌসী আক্তারের ইংরেজি পরীক্ষা ছিল। বাবার মৃত্যুতে মেয়ে স্বাভাবিক অবস্থায় নেই। তারপরও সবাই মিলে বুঝিয়ে তাকে পরীক্ষা দিতে পাঠানো হয়।

শাহতলী জোবাইদা বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সোহেল রুশদী বলেন, ফেরদৌসী মেধাবী শিক্ষার্থী। আমাদের বিদ্যালয়ে ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে তার শ্রেণি রোল নম্বর ছিল ৩। তার বাবার মৃত্যুর খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক তাদের বাড়িতে আমাদের বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক গিয়েছেন। তিনি পরিবারটির পাশে আছেন। আমরা ফেরদৌসীর পাশে আছি এবং সে যেন মানসিকভাবে ভেঙে না পড়ে সেই চেষ্টা করছি। সামনে যাতে সবগুলো পরীক্ষায় সে অংশগ্রহণ করে সে জন্য আমরা তাকে সহযোগিতা করব। এ ছাড়াও উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে ফেরদৌসীর কোনো সহযোগিতার প্রয়োজন হলে আমি বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসেবে তাকে পূর্ণ সহযোগিতা করব।

Leave a Comment

Your email address will not be published.