#jnu#cheat#exam

প্রক্সি দিতে এসে ঢাবি ছাত্র আটক, ব্যাংকে মিলেছে সন্দেহজনক লেনদেন

জবি প্রতিবেদকঃ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ‘বি’ ইউনিটের ভর্তিতে এক শিক্ষার্থীর প্রক্সি পরীক্ষা দিতে এসে আবির নামে যুবক আটক হয়েছেন। আবির ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন ।

শনিবার (১৩ আগস্ট) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে সেজান মাহফুজ নামে শিক্ষার্থীর প্রক্সি দিতে আসলে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা সন্দেহজনকভাবে আবিরকে আটক করে। ভর্তি পরীক্ষা অংশ নেয়া প্রবেশপত্রে শিক্ষার্থীর নাম দেখা যায় সেজান মাহফুজ  (রোল ৩০৯৯৭৬) বাবা মোঃ আবদুল বারী, মাতা: মোসাম্মদ মাহফুজা বেগম।

এ সময় আবিরের কাছ থেকে মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠানের কার্ড উদ্ধার করা হয়। ওই হিসাবে ২৬ লাখ টাকা পাওয়া যায়। যাতে গত দুই দিনে অস্বাভাবিক লেনদেন হয়েছে।

প্রক্টর অফিসে  জেরা করার মাঝে একটি ফোন কল আসলে সবার উপস্থিতি জোরপূর্বক কথা বলতে হয় তাকে মোবাইলফোনে লাউড স্পিকারে শোনা যায় আরেক ভাইবা পরীক্ষায় অংশ নেয়ার কথা। বড় কোন চক্রের সাথে জড়িত আছে এই শিক্ষার্থী বলে ধারনা করা হচ্ছে।ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির একটি বড় চক্রের অংশ হিসেবে সে কাজ করছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। জাহাঙ্গীরনগর  বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় একজনের প্রক্সি দিয়েছে বলেও প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল বলেন, এই যুবককে সন্দেহজনকভাবে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা আটক করে। তার কাছ থেকে যা উদ্ধার করা হয়েছে, প্রাথমিকভাবে তাতে প্রক্সি দেওয়ার সত্যতা মিলেছে।

 

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.