কৃষিতে অবদান রাখায় এআইপি সম্মাননা পাচ্ছেন ১৩ জন

 

অনলাইন ডেস্ক

সিআইপির মতো প্রথমবার এআইপি স্বীকৃতি দিতে যাচ্ছে সরকার। চারটি ক্যাটাগরিতে কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখা ১৩ জনকে ২০২০ সালের জন্য ‘কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (এগ্রিকালচারালি ইম্পর্ট্যান্ট পারসন- এআইপি)’ কার্ড দেবে কৃষি মন্ত্রণালয়।

আগামী বুধবার (২৭ জুলাই) ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মনোনীতদের হাতে এআইপি কার্ড তুলে দেওয়া হবে।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বলাই চন্দ্র হাজরা স্বাক্ষরিত ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘কৃষিতে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি নীতিমালা ২০১৯’-এর ধারা ৯ এর আলোকে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে পাঁচ ক্যাটাগরিতে কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (এআইপি), ২০২০ সম্মাননা প্রদানের লক্ষ্যে নিন্মোক্ত ব্যক্তিদের যথাযথ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নির্বাচিত করা হয়েছে।’

এরমধ্যে কৃষি উদ্ভাবন জাত/প্রযুক্তি ক্যাটাগরিতে চারজন, কৃষি উৎপাদন/বাণিজ্যিক খামার স্থাপন ও কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্প ক্যাটাগরিতে ছয়জন, স্বীকৃত বা সরকার কর্তৃক রেজিস্ট্রিকৃত কৃষি ফসল/মৎস্য/প্রাণিসম্পদ/বনজসম্পদ/উপখাতভুক্ত সংগঠন ক্যাটাগরিতে একজন ছাড়াও বঙ্গবন্ধু কৃষি পুরস্কার স্বর্ণপদক ক্যাটাগরিতে একজনসহ মোট ১৩ জন ২০২০ সালের জন্য এই সম্মাননা পাচ্ছেন।

কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের স্বীকৃতি দিতে ২০১৯ সালে একটি নীতিমালা তৈরি করে সরকার। এ ব্যাপারে কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বলাই কৃষ্ণ হাজরা বলেছেন, বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের (সিআইপি) মতো কৃষিখাতে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে এআইপিদের সম্মানিত করা হবে।

চলতি বছরে যারা এআইপি পুরস্কার পাচ্ছেন তারা হলেন- অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান, আতাউস সোপান মালিক, সৈয়দ আব্দুল মতিন, আলীমুছ ছাদাত চৌধুরী, মো. সেলিম রেজা, মো. মেহেদী আহসান উল্লাহ চৌধুরী, মো. মাহফুজুর রহমান, মো. বদরুল হায়দার বেপারী, মো. শাহবাজ হোসেন খান, মো. সামছুদ্দিন, মো. জাহাঙ্গীর আলম শাহ, মোছা. নুরুন্নাহার বেগম ও মো. শাহজাহান আলী বাদশা।

পুরস্কারপ্রাপ্তরা এক বছরের মেয়াদে সচিবালয়ে ঢোকার পাস, রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ, বিমান ও রেলের টিকিটে অগ্রাধিকার ছাড়াও নিজে ও পরিবারের সদস্যদের সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসায় কেবিনে অগ্রাধিকার পাবেন বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে সম্প্রতি কৃষি সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম বলেন, কৃষি অনেক এগিয়ে। যাদের হাত ধরে এগিয়ে, কৃষিতে অবদান রাখা সেই ব্যক্তিদের আমরা সম্মানিত করতে চাই। তারা কিছু সুযোগ-সুবিধাও পাবেন, যেমনটা সিআইপিরা পেয়ে

Leave a Comment

Your email address will not be published.